আজ ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সময় : রাত ৩:০৮

বার : শনিবার

ঋতু : বর্ষাকাল

ওয়ারফেজ ‘অবাক ভালোবাসা’ গান রিমেইকের কারণ জানালো

ব্যান্ড ওয়ারফেজের দ্বিতীয় অ্যালবাম ‘অবাক ভালোবাসা’র টাইটেল গান কোক স্টুডিও বাংলায় নতুন আবহে প্রকাশিত হওয়ার পর বেশ সাড়া ফেলেছে। নব্বই দশকের জনপ্রিয় এই গানটি বর্তমান প্রজন্মে ভিন্নতা পাওয়ায় উন্মাদনা ছড়িয়ে যায় শ্রোতামহলে।

ব্যান্ড ওয়ারফেজের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে নতুন আঙ্গিকে ‘অবাক ভালোবাসা’ গানটি গত ২৪ মে প্রকাশ করে কোক স্টুডিও বাংলা। ১৯৯৪ সালে প্রকাশিত এই গানটি লিখেছেন ও সুর করেছেন ব্যান্ডটির সাবেক লিড ভোকালিস্ট বাবনা করিম। নতুন সংগীতায়োজনেও গানটি গেয়েছেন এই শিল্পী। তার সঙ্গে গেয়েছেন দলটির ব্যান্ডটির বর্তমান ভোকাল পলাশ নূর। গিটারে ছিলেন সামির হাফিজ আর কমল, কিবোর্ডে শামস, ড্রামসে টিপু ও বেজ গিটারে ছিলেন রজার।

অবাক ভালোবাসার নতুন এই সংস্করণে মূল গানটিকে সম্মান জানিয়েছে ওয়ারফেজ। নতুন সংগীতায়োজনের ব্যবহার করা হয়েছে আধুনিক বাদ্যযন্ত্র। প্রযোজনায় ছিলেন শায়ান চৌধুরী অর্ণব, শেখ মনিরুল আলম টিপু ও সামির হাফিজ।তবে গানটির নতুন আঙ্গিকে তুলে ধরার পেছনে আরও কিছু কারণ জানিয়েছে ব্যান্ড ওয়ারফেজ। সম্প্রতি ঈদ বিশেষ এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে ওয়ারফেজের ড্রামার ও দলপ্রধান শেখ মনিরুল আলম টিপু জানান, গানটিকে দুই জেনারেশনের কাছেই গ্রহণযোগ্য করে তোলার জন্যই ‘অবাক ভালোবাসা’ রিমেইক করা হয়েছে। তবে বিষয়টি উপস্থাপন করা বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল বলে জানান এই সংগীতশিল্পী। কারণ, গানটির মধ্যে ভিন্ন স্কেলের কাজের পাশাপাশি ভিন্ন ধাঁচে উপস্থাপন করতে সম্পূর্ণ সংগীত আয়োজন নিয়ে নতুন আঙ্গিকে চিন্তা করতে হয়েছে।সাক্ষাৎকারে টিপু বলেন, ‘অবাক ভালোবাসা গানটির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ যে ব্যাপারটা ছিল, তা হলো গানটির দুটো স্কেল। এক বাবনার স্কেল, আরেকটি হচ্ছে পরশের স্কেল। আমাদের ওল্ড জেনারেশন, নিউ জেনারেশনের কাছে গানটি হ্যান্ডওভার করছে; ঠিক এই ব্যাপারগুলো কীভাবে সাজাবো তা খুব চ্যালেঞ্জিং ছিল। তবে বিশ্বাস ছিল, সংকল্প ছিল, চেষ্টা ছিল ভালো কিছু করার, আমরা করেছি। আর দর্শকরা এখন তার প্রতিদান দিচ্ছে।’

গানটি কেন বাছাই করা হয়েছে, এ প্রসঙ্গে ওই সাক্ষাৎকারে টিপু বলেন, ‘অবাক ভালোবাসা গানটি নিয়ে দুই জেনারেশনের মাঝেই একটা উন্মাদনা রয়েছে। গানটি সেই শুরু থেকেই তুমুল শ্রোতা প্রিয়তার মাঝ দিয়ে এসেছে। এই গানটির আলাদা জনপ্রিয়তা আছে, নতুন প্রজন্মের কাছেও উপস্থাপন করা যাবে। এছাড়াও কোক স্টুডিওর স্টাইলে গানটিকে ম্যাচ করা সম্ভব। পরে মিউজিক্যাল ডিরেকশন, আইডিয়া অনুযায়ী সকলের বিবেচনায় গানটি বাছাই করা হয়েছে।’

১৯৮৪ সালের ৬ জুন যাত্রা শুরু করেছিল ওয়ারফেজ। দীর্ঘ পথচলায় উপহার দিয়েছে ‘বসে আছি’, ‘নেই প্রয়োজন’, ‘অসামাজিক’, ‘অবাক ভালোবাসা’, ‘জননী’, ‘যত দূরে’, ‘বেওয়ারিশ’, ‘মহারাজ’, ‘তোমাকে’, ‘পূর্ণতা’, ‘সত্য’, ‘রূপকথা’র মতো জনপ্রিয় গান। এ পর্যন্ত প্রকাশ পেয়েছে ব্যান্ডের আটটি অ্যালবাম।

চার দশক পূর্তি উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে কনসার্টে অংশ নেওয়ার কথা আছে দলটির। মনিরুল আলম টিপু জানান, যুক্তরাষ্ট্র সফর প্রায় চূড়ান্ত। ভিসা পেলেই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে। টিপু আরও জানান, যুক্তরাষ্ট্রের আয়োজন শেষে বছরের শেষ দিকে দেশে উদ্যাপন করা হবে ওয়ারফেজের ৪০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এর আওতায় বেশ কয়েকটি কনসার্টের পরিকল্পনা করছে ব্যান্ডটি।

ডিএ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category