আজ ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সময় : বিকাল ৪:৩৩

বার : বুধবার

ঋতু : গ্রীষ্মকাল

নির্বাচনে সহিংসতা চায় না ইইউ

নির্বাচনে সহিংসতা চায় না ইইউ

বাংলাদেশে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনও ধরনের সহিংসতা বা অস্থিতিশীলতা চায় না ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ)। একইসঙ্গে বাংলাদেশের নির্বাচন পরিস্থিতি নিয়ে কোনও ধরনের মধ্যস্থতা বা হস্তক্ষেপ করবে না ইইউ।

মঙ্গলবার (৯ মে) ‘ইউরোপ ডে’ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ইইউ’র রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলি। সংবাদ সম্মেলনে ইটালি, নেদারল্যান্ডস, ফ্রান্স, জার্মানি, ডেনমার্ক, সুইডেন ও স্পেনের রাষ্ট্রদূতরা উপস্থিত ছিলেন।

তিনি জানান, নির্বাচন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য বিশেষজ্ঞ দল পাঠাবে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন। স্বাধীন ওই বিশেষজ্ঞ দল জুলাই মাসে বাংলাদেশে আসবে এবং পরিস্থিতি মূল্যায়ন করে তাদের মতামত ইইউ’র হাই রিপ্রেজেন্টিটিভ (পররাষ্ট্রমন্ত্রী) জোসেফ বোরেলের কাছে জমা দেবে। নির্বাচনের সময়ে ইইউ পর্যবেক্ষক পাঠাবে কিনা, সেটির সিদ্ধান্ত নেবেন জোসেফ বোরেল।

চার্লস হোয়াইটলি জানান, আপনারা নিশ্চয় জানেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের উচ্চ প্রতিনিধি (জোসেফ বোরেল) বলেছেন, আমরা নির্বাচন পর্যবেক্ষক মিশন পাঠাতে প্রস্তুত। আপনারা আরও  জানেন, আমরা নির্বাচন কমিশন থেকে আমাদের পর্যবেক্ষক মিশন মোতায়েনের বিষয়ে একটি চিঠি পেয়েছি। পর্যবেক্ষক পাঠানোর ক্ষেত্রে কোনও বাধা যাতে না হয়, সেটার সিকিউরিটি হিসেবে এটা দরকার ছিল।

ইইউ রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘জোসেফ বোরেল যখন বাংলাদেশকে পর্যবেক্ষক পাঠানোর অগ্রাধিকার তালিকায় রাখেন, তখন তিনি বলেছিলেন যে, পর্যবেক্ষক তখনই পাঠানো হবে— যখন নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে। তবে তিনি বলেননি যে, এক্স পার্টিকে অংশগ্রহণ করতে হবে বা ওয়াই পার্টিকে অংশগ্রহণ করতে। বিষেশজ্ঞ দল এখানে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পরিস্থিতিও দেখবে। সব দলের সঙ্গে আলোচনা  এবং মূল্যায়ন করবে— আমরা কোনটিকে অংশগ্রহণমূলক হিসেবে বিবেচনা করবো। আমরা এখনই বলতে পারছি না যে, অমুক দল অংশগ্রহণ করলো বা করলো না এবং সেটির ওপর পর্যকেক্ষক পাঠানো নির্ভর করছে।’

বিশেষজ্ঞ দল আসাটা প্রথম ধাপ, তারা ইইউ’র কোনও কর্মকর্তা নয় জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘দলটি সব রাজনৈতিক দল, নাগরিক সমাজ ও মিডিয়ার সঙ্গে বসবে। এটা শুধু নির্বাচনের বিষয় নয়, এখানে দেখা হবে— একটি নির্বাচনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সব বিষয়ও, সেখানে নিরাপত্তার বিষয়ও রয়েছে।’

বিএনপির সঙ্গে আলোচনায় কী কথা হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা শুধু বিএনপির সঙ্গে বসিনি। আমরা সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বসেছি। বিএনপি প্রকাশ্যে যে কথাগুলো বলে, সেগুলো আমাদেরকেও বলেছে। আমরা সব দলের সঙ্গে বসবো।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category