আজ ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সময় : রাত ১০:৪১

বার : শনিবার

ঋতু : বসন্তকাল

আজকের শপথ হউক মানুষের প্রত্যাশা পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাবো না : তারেক রহমান

আজকের শপথ হউক মানুষের প্রত্যাশা পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাবো না : তারেক রহমান


তারেক রহমান

তারেক রহমান

নিজস্ব প্রতিনিধি

বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বলেছেন, লাখো মানুষের এই সমাবেশ হচ্ছে নিরাপদ বাংলাদেশ গড়া এবং মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে। সারা দেশের মানুষ তাকিয়ে আছে সমাবেশের প্রতি। দেশের মুক্তিকামী, ও গণতন্ত্রকামী জনতা আজ জেগে উঠেছে। আমাদের আজকের শপথ হউক- জনগণের প্রত্যাশা পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাবো না।

শুক্রবার (২৮ জুলাই) নয়াপল্টনে বিএনপির মহাসমাবেশ উপলক্ষে সমবেত লাখো মানুষের সামনে মোবাইলে যুক্ত হয়ে অডিও বক্তব্যে তারেক রহমান এই কথা গুলো বলেন।

মহাসমাবেশের শেষ দিকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত লাখো জনতাকে চমকে দিয়ে জানান তারেক রহমান এখন অডিও বক্তব্য দেবেন।

এ সময় বিশাল সমাবেশে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন লাখো জনতা। স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে সমাবেশস্থল।

অডিও থেকে নেওয়া তারেক রহমানের বক্তব্যটি হুবহু নিচে উল্লেখ করা হলো-

অডিও বক্তব্যে তারেক রহমান বলেন, প্রিয় বাংলাদেশ। প্রিয় বাংলাদেশের মুক্তিকামী জনতা। আসসালামু আলাইকুম। প্রিয় ভাই বোনেরা। আজকে সমগ্র বাংলাদেশ জেগে উঠেছে। সমগ্র বাংলাদেশের মুক্তিকামী, গণতন্ত্রকামী জনতা জেগে উঠেছে। আজকে পল্টনের পিচঢালা পথে লাখো লাখো মানুষ তার প্রমাণ।

ভাই বোনেরা এই সমাবেশ শুধুমাত্র একটা রাজনৈতিক দলের সমাবেশ নয়। আজকের এই সমাবেশ সমগ্র বাংলাদেশের তরুণ-ছাত্র-যুবক-নারী-শিশুসহ সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের জন্য একটি নিরাপদ বাংলাদেশ গড়ে তোলার সমাবেশ।

ভাই বোনেরা আজকের এই সমাবেশ বাংলাদেশের শত শত সাংবাদিক, যাঁরা জনগণের পক্ষে সত্য বলতে গিয়ে নির্যাতিত হয়েছেন- সেই সাংবাদিকরা যাতে স্বাধীনভাবে লিখতে পারেন তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য এই সমাবেশ। এই সমাবেশ বাংলাদেশের বহু মানবাধিকার কর্মী, যাঁরা অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সংগ্রাম করেন, এই সকল মানবাধিকার কর্মী যাতে ভবিষ্যতে নিরাপত্তার সাথে কাজ করতে পারেন সেই পরিবেশ সৃষ্টির সমাবেশ। আজকের সমাবেশ বাংলাদেশের লক্ষ কোটি ছোট-বড় মাঝারি ব্যবসায়ী, যাঁরা বিভিন্নভাবে নির্যাতিত, যাঁরা কষ্টে আছেন তাঁরা যাতে নির্বিঘ্নে ব্যবসা করতে পারেন সেই ব্যবসায়ীদের জন্য নিরাপদ বাংলাদেশ গড়ার সমাবেশ।

তিনি বলেন, সিভিল সোসাইটি যাতে নিরাপদে নিজেদের মনোভাব ব্যক্ত করতে পারেন সেই অধিকার প্রতিষ্ঠার সমাবেশ। আজকের সমাবেশ ১২ কোটি মানুষের ভোটের অধিকারর প্রতিষ্ঠার সমাবেশ। আজ কোটি কোটি মানুষ সমাবেশের দিকে প্রত্যাশা নিয়ে তাকিয়ে আছেন। কোন প্রত্যাশা? বাংলাদেশের কোটি মানুষের প্রত্যাশা তাদের হারিয়ে যাওয়া ভোটের অধিকার, গণতান্ত্রিক অধিকার, নিরাপত্তার অধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করে ফিরে যাবেন ভাই বোনেরা।

আজ যদি এই সমাবেশ ব্যর্থ হয়, ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ব্যর্থ হবে। বাংলাদেশ ব্যর্থ হতে পারে না। কারণ লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে দেশকে স্বাধীন করা হয়েছে। জনগণ ব্যর্থ হতে পারে না। কারণ তারা রক্ত দিয়ে দেশকে স্বাধীন করেছেন। আপনাদের কাছে আমার জিজ্ঞাসা আপনারা কি সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত?

এ সময় সমাবেশ উপস্থিত হাজার হাজার জনতা উচ্চকণ্ঠে বলেন ওঠেন ‘হ্যাঁ’।

তারেক রহমান বলেন, যে প্রত্যাশা নিয়ে বাংলাদেশের মানুষ এই লাখো জনতার সমাবেশের দিকে তাকিয়ে আছে বাংলাদেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণ না করে জনগণ ফিরে যাবে না। এই হোক আমাদের প্রতিজ্ঞা। এই হোক আমাদের শপথ।

মানুষের হারানো অধিকার প্রতিষ্ঠা করে এই জনতা ঘরে ফিরে যাবে। সকলে প্রস্তুত কিনা সংগ্রামের জন্য? হাত তুলে দেখিয়ে দিন আপনারা প্রস্তুত?

উপস্থিত জনতা হাত তুলে তাদের সমর্থন ব্যক্ত করেন।

তারেক রহমান বলেন, বিএনপি শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের দল। খালেদা জিয়ার দল। বাংলাদেশের শান্তিপ্রিয় মানুষের দল। জনগণই ক্ষমতার উৎস। আজ জনগণ জেগে উঠেছে। জনগণকে সাথে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে আমরা দাবি পুনঃপ্রতিষ্ঠা করব।

স্বৈরাচারমুক্ত বাংলাদেশে দেখা হবে, ইনশাআল্লাহ। মুক্তিকামী জনতা জিন্দাবাদ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category